প্রচ্ছদ » Slider » স্যামসাং এর নতুন চমক গ্যালাক্সী ফোল্ড

স্যামসাং এর নতুন চমক গ্যালাক্সী ফোল্ড

Posted By:নিজস্ব প্রতিবেদক | Posted In:Slider,ফিচার,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি | Posted On:Feb 25, 2019
galaxy

টুডেবার্তা ।।

স্যামসাং এর এ বছরের প্রথম বড় ইভেন্ট হয় গেলো ২০ ফেব্রুয়ারি তে। এই ইভেন্ট এর হাইপ অনেক দিন ধরেই। প্রধানত নতুন বছরের প্রথমার্ধের জন্য স্যামসাং এর কি পরিকল্পনা বা কি কি নতুন প্রোডাক্ট নিয়ে এসেছে, এসব বিষয়ই তুলে ধরা হয় এই অনুষ্ঠানে। সবারই জানা ছিল যে স্যামসাং তার গ্যালাক্সি এস ১০ তুলে ধরবে ইভেন্টে, কিন্তু প্রথমেই তারা সবার সামনে তুলে ধরে নতুন এক পণ্য। “গ্যালাক্সি ফোল্ড” যেন ভবিষ্যতের নতুন দুয়ার, প্রজাপতির ডানার মত সৌন্দর্যের প্রতীক। স্যামসাং এর প্রোডাক্ট মার্কেটিং দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জাস্টিন ডেনিসন তাদের “আনপ্যাক্ড” ইভেন্টের সূচনা করেন।

গ্যালাক্সি ফোল্ড একই সাথে একটি ফোন এবং একটি ট্যাবলেটের মতো দেখতে একটি ডিভাইস। চাইলে উপরের ডিসপ্লে থেকে সাধারণ একটি ফোনের মতো ব্যবহার করতে পারবেন। কিংবা চাইলে তা খুলে নিয়ে একটি ট্যাবলেটের বিশাল স্ক্রীনের আনন্দ নিতে পারবেন। অর্থাৎ স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেট একই সাথে। উপরে থাকছে ৪.৬ ইঞ্চির একটি ডিসপ্লে যার সাহায্যে আপনি আপনার দৈনন্দিন ফোন সংশ্লিষ্ট সকল কাজই করতে পারবেন। কিন্তু ধরুন এই ডিসপ্লে আপনার জন্য যথেষ্ট নয়। কোন সমস্যাই নেই, শুধু ফোনটি খুলে নিলেই পেয়ে যাবেন ৭.৩ ইঞ্চির একটি বিশাল স্ক্রীন। বিশাল স্ক্রীনে মাল্টি টাস্কিং এর মজা পাওয়া যাবে গ্যালাক্সি ফোল্ডে। কারণ এই প্রথম কোন মোবাইল ডিভাইসে একসাথে দুটি নয় বরং তিনটি অ্যাপ্লিকেশান চালানো সম্ভব হবে। শক্তি দেওয়ার জন্য থাকছে ৭ ন্যানো মিটারের প্রসেসর ও ১২জিবি র‍্যাম যা গ্যালাক্সি ফোল্ডকে করে তুলবে বাজারের অন্যতম শক্তিশালী একটি মোবাইল ডিভাইস। ৫১২জিবি স্টোরেজের সাথে স্যামসাং অফার করছে এই ডিভাইসটি, যার মধ্যে থাকবে ইউনিভার্সাল ফ্ল্যাশ স্টোরেজ ৩.০ এর সাপোর্ট যা বাজারের বেশিরভাগ স্মার্ট ফোনের চেয়ে দিগুণ গতিতে আপনার ফোনের ডাটা পড়তে সাহায্য করবে। যেহেতু ডিভাইসটি মাঝখানে ভাজ করতে হয় তাই দুটি আলাদা ব্যাটারি বানানো হয়েছে দুই অংশের জন্য, কিন্তু তা একসাথে একটি ব্যাটারির মতো কাজ করবে যা আপনাকে সম্মিলিত ভাবে একটি ৪৩৮০ মিলিয়াম্পের সমান ব্যাটারির অভিজ্ঞতা দিবে। থাকছে মোট ৬টি ক্যামেরা যার তিনটি পেছনে, দুটি ভিতরে এবং একটি উপরে। তবে আমাদের কাছে সবচেয়ে ভালো লেগেছে যে ফিচারটি তা হলো “অ্যাপ কন্টিনিউইটি”। এর সাহায্যে ফোনের উপরের প্রথম ডিসপ্লেতে আপনি যা দেখছিলেন বা ব্যবহার করছিলেন, ফোনটি খোলার সাথে সাথে ঠিক ওই জায়গা থেকেই ব্যবহার করতে পারবেন বড় স্ক্রীনে। এছাড়াও গুগল ও অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার কমিউনিটির সহায়তায় অ্যাপ্লিকেশান গুলো ভালভাবে অপ্টিমাইজ করা হয়েছে যেন তা আপনাকে সেরা পারফর্মান্স দিতে সক্ষম হয়। ইউটিউবের সাথে মিলে গ্যালাক্সি ফোল্ড ক্রেতাদের ফ্রিতে ইউটিউব প্রিমিয়াম দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে। ৪জি ও ৫জি নেটওয়ার্ক ধরতে সক্ষম এই ফোন পাওয়া যাবে চারটি রঙে। কজমোস ব্ল্যাক, স্পেস সিলভার, মারশিয়ান গ্রিন ও অ্যাস্ট্রাল ব্লু। এ.কে.জি.সাউন্ড সিস্টেমের সাথে গ্যালাক্সি ফোল্ড পাওয়া যাবে এপ্রিল মাসের ২৬ তারিখ থেকে। এর দাম ১৯৮০ মার্কিন ডলার থেকে শুরু হবে।